Sunday, July 1, 2018

বাতায়নের ঝড়ো হাওয়া!

সবারমত আমার শব্দ ভান্ডার নেই, তাই লিখতে বড্ড বেশি ভয়! তবু ইচ্ছে করে .. মেয়ে আমি! ছোটবেলাতেই মেয়েলি কাজ অসহনীয়। কে জানে কোন জনমে আবার ছেলে ছিলাম কিনা? কিন্তু কম্পিউটার প্রেমি ছিলাম বটে!!! ২০১২ আর পূজোর ছুটি তাই সব শিক্ষক ট্রেনিং করতে নারাজ। তারা শ্রেফ বলে দিল আপনি যান কি আর করা যেই কথা সেই কাজ চলে গেলাম ট্রেনিং করতে।স্যাররা নতুন তবু প্রাণপন চেষ্টা শেখার।আগে থেকে বাসায় কম্পিউটার ছিল বলেই মনে হয় ট্রেনিং এ ভাল মানের কন্টেন্ট তৈরি করতে পেরেছিলাম। তাই আমার কন্টন্টি ঢাকা থেকে আসা পরিদর্শক মহোদয়ের সামনে উপ্সথপন করেছিলাম। তারপর হয়ে গেলাম নিং এর সদস্য।কন্টেন্ট ও আপ্লোড করলাম।কিনতু পথিমধ্যে জীবন যুদ্ধে পরাজিত হয়ে চলে এলাম, হঠাত সাইক্লোন এসে সব এলোমেলো করে দিল।কয়দিন আড়ালে থেকে আর পারছিলাম না।সিলেট পি টি আই থেকে বলা হলো আপনি নাকি চলে গেছেন মডেল স্কুল থেকে? অধিদপ্তর থেকে নাম চেয়েছিল কারা আই সি টি ট্রেনিং ভাল করেছিল তাদের নাম পাঠাতে আমরা আপনার নাম দিয়েছি।কয়দিন পর ডাক আসল বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ের স্ক্রিপ্ট রাইটিং এর কাজে ব্রাক সি ডি এম সেন্টারে যেতে।সেখানে সেরা কন্টেন্ট নির্মাতাদের দেখে আবার ফিরে যেতে মন চাইল অটো বাতায়নের সদস্য হতে পারা আমার। ইনহাউজ ট্রেনিং থেকে আরো শক্তি নিয়ে কিছু দিনে পরে সেরা হয়ে গেলাম।আর পিছু ডাক শুনে কে হাঁটি হাঁটি পথ চলা , এখন  মুক্তপাঠ আমার গৃহ টিউটর আর সারা পৃথিবী আমার পাঠশালা ,যখন যে দেশে যেতে মন চায় চলে যাই। বাতায়ন দিয়ে যে ঝড়ো হাওয়া উঠেছিল তা ভাসিয়ে নিল আমাকে ৭টি মহাদেশে। আমি আজ কৃতজ্ঞ, অবনত আমার শির বাতায়নের কাছে। এভাবে আর ও শত শত শিক্ষকের প্রাণে ঝড়ো হাওয়া তোল বাতায়ন। আমি পাশে থেকে দেখি তোমাকে । আর আবেদন তোমার বদ্ধ জানালা খুলে দাও বিশ্ব দরবারে!দেবে কি? আমার ভিনদেশি বন্ধুরা তোমার স্বাদ নিতে চায়।

SEL day

https://docs.google.com/document/d/1Mo066z7oBXN__aVK7LwAgbwxYJzuKRu5O1VL7wkUuXU/edit?usp=sharing